সার্বিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসা ২০২৪

Rate this post

সার্বিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসা ২০২৪, আপনারা জানেন যে বর্তমানে বাংলাদেশসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে ওয়ার্ক পারমিট ভিসার মাধ্যমে সার্বিয়া সরকার শ্রমিক সংগ্রহ করছে। আপনারা যারা বাংলাদেশ থেকে সার্বিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসা এর মাধ্যমে যেতে চাচ্ছেন তাদের মধ্যে অনেকেই সার্বিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসা সম্পর্কে জানেন না। তাই আপনারা বিভিন্ন সময় সার্বিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসা ২০২৪ সম্পর্কে গুগলে সার্চ করে থাকেন কিন্তু সঠিক কোন তথ্য পান না। তাই আজকের এই গুরুত্বপূর্ণ আর্টিকেল এর মাধ্যমে আপনারা খুব সহজেই সার্বিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসা ২০২৪ সম্পর্কে সকল তথ্য পেয়ে যাবেন।

আপনারা সব সময় একটি কথা মাথায় রাখবেন আপনারা যদি ওয়ার্ক পারমিট ভিসা নিয়ে সার্বিয়া যেতে চান তাহলে অবশ্যই সরকারি ভাবে যাওয়ার চেষ্টা করবেন। কারণ একমাত্র বাংলাদেশ থেকে সরকারিভাবে সার্বিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসা নিয়ে সার্বিয়া যাওয়া নিরাপদ। তাহলে আর কথা না বললে চলুন দেখে নেওয়া যাক সার্বিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসা ২০২৪ সম্পর্কিত বিস্তারিত সকল তথ্য।

সার্বিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসা

সার্বিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসা বোঝানো হচ্ছে যে সার্বিয়া গিয়ে আপনারা কি কি কাজ করতে পারবেন এবং সেই কাজের নিয়ম কি কি তার বিস্তারিত তথ্য। আপনি যদি বাংলাদেশ থেকে সার্বিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসা নিয়ে কাজের উদ্দেশ্যে যান তাহলে ভিসার মেয়াদ হবে ১ বছর অর্থাৎ সার্বিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসার মেয়াদ হচ্ছে ১ বছর তবে ভিসার মেয়াদ বাড়ানো যায় বা রিনিউ করা যায়। আর আপনারা যারা জানতে চান সার্বিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসার মাধ্যমে কোন কোন কাজ করা যায় তারা নিম্নে লিখিত লিস্ট থেকে দেখে নিন বর্তমানে সার্বিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসার মাধ্যমে কোন কোন কাজ করা যায়।

  • ড্রাইভিং এর কাজ।
  • ইলেকট্রনিক্সের এর কাজ।
  • মেকানিক্যালের এর কাজ।
  • ইলেকট্রিশিয়ানের এর কাজ।
  • হোটেল বা রেস্টুরেন্ট এর কাজ।
  • নির্মাণ কাজের শ্রমিক এর কাজ।
  • প্লাম্বিং এবং পাইপ ফিটিং এর কাজ।

সার্বিয়া ওয়ার্ক পারমিট আবেদন

সার্বিয়া ওয়ার্ক পারমিট আবেদন বলতে বুঝানো হয়েছে যে আপনি বাংলাদেশ থেকে কিভাবে সার্বিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসার জন্য আবেদন করবেন এবং আবেদন করতে কি কি কাগজপত্র প্রয়োজন হবে তার বিস্তারিত সকল তথ্য। ভিন্ন ভিন্ন দেশে ভিসার জন্য আবেদনে ভিন্ন ভিন্ন কাগজপত্র প্রয়োজন হয়। তবে কিছু কাগজপত্র আপনারা জানেন যে সব দেশের ক্ষেত্রে একই রকম লাগে তো যাই হোক আপনারা যারা সার্বিয়াতে ওয়ার্ক পারমিট ভিসার জন্য আবেদন করবেন তাদের কি কি কাগজপত্র প্রয়োজন হবে তার একটি লিস্ট নিম্নে দেওয়া হলো।

  • ইনভাইটেশন লেটার অবশ্যই লাগবে।
  • অবশ্যই ইংরেজি ভাষায় দক্ষ থাকতে হবে।
  • পাসপোর্ট সাইজের রঙিন কয়েক কপি ছবি।
  • নিজের হাতে লেখা একটি কভার লেটার লাগবে।
  • কোভিট-১৯ এর ভ্যাকসিন সার্টিফিকেট লাগবে।
  • অবশ্যই ওয়ার্ক পারমিট ভিসার আবেদনের অনলাইন কপি
  • বৈধ বাংলাদেশী পাসপোর্ট যার মেয়াদ ৬ মাস থাকতে হবে।
  • ইনকাম ট্যাক্স এর ফটোকপি এবং ব্যাংক স্টেটমেন্ট লাগবে।

সার্বিয়া ওয়ার্ক পারমিট চেক

আপনারা যারা বাংলাদেশ থেকে সার্বিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসা নিয়ে যাবেন তারা অবশ্যই সার্বিয়া যাওয়ার আগে ওয়ার্ক পারমিট ভিসা চেক করে যাবেন। আপনি যদি কোন দালাল ভাই এজেন্সির মাধ্যমে স্যার বেরিয়ে যেতে চান তাহলে সেই দালাল এবং এজেন্সির মাধ্যমেও আপনি সার্বিয়ার ভিসা চেক সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানতে পারবেন। আর আপনি যদি নিজেই অনলাইনের মাধ্যমে সার্বিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসা চেক করতে চান তাহলে আপনি প্রথমে এই https://www.companywall.rs/ ওয়েবসাইটে ঢুকে নির্ধারিত ফরমগুলো পূরণ করে আপনি খুব সহজেই সার্বিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসার সকল তথ্য চেক করতে পারবেন।

সার্বিয়া ওয়ার্ক পারমিট পেতে কত দিন লাগে

আপনারা যারা সার্বিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসার জন্য আবেদন করেছেন তাদের অনেকেই ইন্টারনেটে খোঁজ করে থাকেন সার্বিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসা পেতে কতদিন লাগে?  আপনি যদি সঠিক কাগজপত্র এবং নিয়ম মেনে ওয়ার্ক পারমিট ভিসার জন্য আবেদন করেন তাহলে আপনার ওয়ার্ক পারমিট ভিসা হতে সময় লাগবে মাত্র ৩ থেকে ৪ মাস। আপনার কাগজপত্র এবং আবেদনের নিয়ম যদি সঠিক না হয় তাহলে আপনি সার্বিয়ার জন্য ওয়ার্ক পারমিট ভিসা নাও পেতে পারেন। তাই সঠিক নিয়মে ওয়ার্ক পারমিট ভিসার জন্য আবেদন করলে মাত্র সময় লাগে ৩ থেকে ৪ মাস আশা করি আপনারা জানতে পেরেছেন সার্বিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসা পেতে কতদিন লাগে।

আরও পড়ুনঃ সার্বিয়া যেতে কত টাকা লাগে এবং ভিসা খরচ কত

সার্বিয়া যেতে বয়স কত লাগে

আপনারা যারা ওয়ার্ক পারমিট ভিসা নিয়ে বাংলাদেশ থেকে সার্বিয়া যেতে চান তাদের অনেকেই আছেন জানেন না সার্বিয়া যেতে বয়স কত লাগে। আপনি ইউরোপের যে কোন দেশেই যান না কোন অবশ্যই আপনাকে কিছু আইন-কানুন মানতে হবে তার মধ্যে একটি আইন হচ্ছে ইউরোপের প্রতিটা দেশে একটি নির্দিষ্ট বয়স সীমায় ওয়ার্ক পারমিট ভিসা নিয়ে প্রবেশ করা যায়। বর্তমানে আপনি যদি বাংলাদেশ থেকে ওয়ার্ক পারমিট ভিসা নিয়ে সার্বিয়া যেতে চান তাহলে আপনার সর্বনিম্ন বয়স প্রয়োজন হবে ২০ বছর এবং সর্বোচ্চ ৪০ বছর। অর্থাৎ আপনি ২০ বছর থেকে ৪০ বছরের মধ্যে ওয়ার্ক পারমিট ভিসা নিয়ে সার্বিয়া প্রবেশ করতে পারবেন।

সর্বশেষ কথা

সম্মানিত পাঠক আপনারা যদি আজকের এই সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই আপনারা জানতে পেরেছেন সার্বিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসা এবং সার্বিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসা পেতে কতদিন লাগে তার বিস্তারিত সকল তথ্য। তাই আপনারা যারা বাংলাদেশ থেকে ওয়ার্ক পারমিট ভিসার মাধ্যমে সার্বিয়া যেতে চাচ্ছেন তারা অবশ্যই সরকারিভাবে যাওয়ার চেষ্টা করবেন তাহলে খরচ কম হবে। আশা করি আজকের এই আর্টিকেলটি আপনাদের ভালো লেগেছে যদি আপনাদের এই আর্টিকেলটি ভালো লেগে থাকে তাহলে অবশ্যই আপনাদের বন্ধুবান্ধব আত্মীয়-স্বজনের সাথে এই আর্টিকেলটি শেয়ার করবেন।

Leave a Comment