হাঙ্গেরি যেতে কত টাকা লাগে | হাঙ্গেরি ওয়ার্ক পারমিট ভিসা ২০২৪

Rate this post

হাঙ্গেরি যেতে কত টাকা লাগে | হাঙ্গেরি ওয়ার্ক পারমিট ভিসা ২০২৪, বাংলাদেশ থেকে বর্তমানে হাঙ্গেরিতে কাজের উদ্দেশ্যে প্রচুর বাংলাদেশী যে থাকে।  কারণ হাঙ্গেরিতে ওয়ার্ড পারমিট ভিসা হচ্ছে তাই বাংলাদেশ থেকে ওয়ার্ক পারমিট ভিসা নিয়ে হাঙ্গেরিতে যাচ্ছে। আগে বাংলাদেশ থেকে হাঙ্গেরিতে মানুষ প্রবেশ করত ইউরোপের অন্য রাষ্ট্রে প্রবেশ করার জন্য। কিন্তু বর্তমানে সময় বদলেছে এখন হাঙ্গেরিতে প্রচুর পরিমাণ কাজ পাওয়া যাচ্ছে।

তাই আপনি বাংলাদেশ থেকে কিভাবে কাজের ভিসা নিয়ে হাঙ্গেরিতে যাবেন এবং হাঙ্গেরি যেতে কত টাকা লাগে কিভাবে হাঙ্গেরি ওয়ার্ক পারমিট পাবেন সেই সকল বিষয় নিয়ে আজকের এই আর্টিকেলে আলোচনা করা হবে। তাই আপনারা যারা হাঙ্গেরিতে যেতে আগ্রহী তারা অবশ্যই আমার এই হাঙ্গেরি যেতে কত টাকা লাগে | হাঙ্গেরি ওয়ার্ক পারমিট ভিসা কিভাবে পেতে হয় আর্টিকেলটি পড়বেন।

হাঙ্গেরি যেতে কত টাকা লাগে

আপনি যদি বাংলাদেশ থেকে ওয়ার্ক পারমিট নিয়ে হাঙ্গেরি যেতে চান তাহলে আপনার কত টাকা খরচ হবে সেই বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে। ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত দেশ হচ্ছে হাঙ্গেরি এই দেশটি ইউরোপ মহাদেশে অবস্থিত। ইউরোপের দেশ বিধায় এই দেশের কাজের মান অনেক উন্নত এবং বাংলাদেশ থেকে প্রচুর প্রবাসী যেতে আগ্রহী।  তাই অনেকেই জানেন না হাঙ্গেরি যেতে কত টাকা লাগে?

আপনি যদি বৈধভাবে বাংলাদেশ থেকে হাঙ্গেরি যেতে চান তাহলে আপনার খরচ পড়বে ১০ লক্ষ টাকা থেকে ১৩ লক্ষ টাকা পর্যন্ত। এই খরচের মধ্যে আপনার পাসপোর্ট থেকে শুরু করে ভিসা প্রসেসিং এবংসকল খরচ এর ভিতর থাকবে।  তাই আপনারা যারা বাংলাদেশ থেকে হাঙ্গেরি যাবেন তারা অবশ্যই ১০ থেকে ১৩ লক্ষ টাকা হাতে নিয়ে হাঙ্গেরি যাবার চেষ্টা করবেন।

হাঙ্গেরি ভিসা খরচ কত

একটা সময় ছিল বাংলাদেশ থেকে হাঙ্গারিতে কাজের ভিসা নিয়ে হাঙ্গেরি যেতে খরচ পড়তো ৪ লাখ টাকা থেকে ৫ লাখ টাকা পর্যন্ত। কিন্তু বর্তমানে ডলারের দাম বৃদ্ধি এবং বাংলাদেশে প্রচুর চাহিদা থাকার কারণে বর্তমানে হাঙ্গেরিতে  ভিসা খরচ হচ্ছে ১০ থেকে ১৩ লাখ টাকা পর্যন্ত।

টাকা খরচ বেশি হলেও আগের তুলনায় হাঙ্গেরি যাওয়ার প্রচেষ্টা অনেকটাই সহজ হয়ে গিয়েছে আর বর্তমানে হাঙ্গেরি থেকে ইউরোপের অন্য দেশে খুব সহজে যাওয়া যায় বিধায় বাংলাদেশ থেকে প্রচুর লোক হাঙ্গেরিতে ওয়ার্ক পারমিট ভিসা নিয়ে যাচ্ছে।

আপনি যদি হাঙ্গেরিতে ওয়ার্ক পারমিট ভিসা পেতে চান তাহলে অবশ্যই আপনাকে বাংলাদেশের সরকারি বা বেসরকারি এজেন্সিতে যোগাযোগ করতে হবে। তবে আপনারা সব সময় চেষ্টা করবেন সরকারি এজেন্সির মাধ্যমে ভিসার জন্য আবেদন করার জন্য।

হাঙ্গেরি ওয়ার্ক পারমিট ভিসা

হাঙ্গেরিতে কাজ করার জন্য বাংলাদেশী নাগরিকদের সাধারণত ওয়ার্ক পারমিটের জন্য আবেদন করতে হবে। বাংলাদেশীদের জন্য বর্তমানে ওয়ার্ক পারমিট পাওয়াটা একটু চ্যালেঞ্জিং হবে কারণ বাংলাদেশ থেকে হাঙ্গেরিতে প্রবেশ করে ইউরোপের অন্য দেশে চলে যায়। তাই বাংলাদেশীদের জন্য হাঙ্গেরির ওয়ার্ক পারমিট পাওয়া একটু চ্যালেঞ্জিং।

আপনি যদি হাঙ্গেরিতে দীর্ঘমেয়াদী বসবাস করার পরিকল্পনা করে থাকেন তাহলে অবশ্যই আপনাকে বাংলাদেশ থেকে ওয়ার্ক পারমিট নিয়ে হাঙ্গেরিতে প্রবেশ করতে হবে। হাঙ্গেরির ওয়ার্ক পারমিট পেতে হলে আপনাকে নির্দিষ্ট কিছু মানদণ্ড পূরণ করতে হবে এবং উপযুক্ত ভিসার জন্য আবেদন।

হাঙ্গেরিতে বেতন কত

আগের তুলনায় হাঙ্গেরিতে কাজের বেতন বৃদ্ধি পেয়েছে এখন বর্তমানে একজন শ্রমিকের মোটামুটি বেতন ৬৫ হাজার থেকে শুরু করে ১ লক্ষ টাকা পর্যন্ত। হাঙ্গেরিতে যাদের ফ্যাক্টরির ভিসা হয় তাদের বেতন আগের তুলনা অনেকটাই বৃদ্ধি পেয়েছে। বর্তমানে ৭০ হাজার টাকা থেকে শুরু করে ৮০ হাজার টাকা পর্যন্ত ফ্যাক্টরিতে ইনকাম করা যায়। যে সকল ব্যক্তি কাজে পারদর্শী তাদের বেতন এক লাখ টাকার উপর পর্যন্ত হয়ে থাকে।

যদি আপনি কোম্পানির ডিউটির পাশাপাশি ওভারটাইম করতে পারেন তাহলে আপনার বেতন দিন দিন বৃদ্ধি পাবে।  তাই অবশ্যই আপনারা চেষ্টা করবেন কোম্পানির কাজের পাশাপাশি বাইরের একটি ওভারটাইম করার জন্য তাহলে হাঙ্গেরিতে বসবাস করে অনেক টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

আরও পড়ুনঃ হাঙ্গেরি টাকার মান | হাঙ্গেরির এক টাকা বাংলার কত টাকা

হাঙ্গেরি কাজের ভিসা আবেদন এর কাগজপত্র

আপনারা যারা বাংলাদেশ থেকে হাঙ্গেরিতে কাজের ভিসার জন্য আবেদন করবেন তাদের নিম্নলিখিত কিছু কাগজপত্র অনলাইনে এবং হাঙ্গেরি এম্বাসিতে জমা দিতে হবে। তাই কোন সকল কাগজপত্র প্রয়োজন পড়বে নিচের লিস্ট থেকে আপনারা দেখে নিতে পারেন।

  • অনলাইনে হাঙ্গেরির ভিসা আবেদনপত্রের ফরম পূরণ করে জমা দিতে হবে।
  • আপনার বৈধ অরজিনাল পাসপোর্ট এর ফটোকপি জমা দিতে হবে।
  • দুই কপি রঙিন পাসপোর্ট সাইজের ছবি এবং ছবিগুলো অবশ্যই সত্যায়িত থাকতে হবে।
  • শিক্ষাগত যোগ্যতার সকল অরজিনাল সার্টিফিকেট।
  • হাঙ্গেরি অবস্থিত যে কোন একটি কোম্পানির সাথে চুক্তির ডকুমেন্টস।
  • অবশ্যই আপনাকে হাঙ্গেরিতে বৈদ্য ভিসার জন্য আবেদন করতে হবে।

সর্বশেষ কথাঃ

আপনারা যারা বাংলাদেশ থেকে বৈধ পথে হাঙ্গেরি যেতে চাচ্ছেন তারা অবশ্যই সরকারি বা বেসরকারি এজেন্সির মাধ্যমে হাঙ্গেরি যাওয়ার চেষ্টা করব। এজেন্সি ছাড়া কখনোই পাসপোর্ট কারো কাছে জমা দিবেন না শুধুমাত্র বাংলাদেশ থেকে এজেন্সির মাধ্যমে হাঙ্গেরিতে যাওয়া যায়।

4 thoughts on “হাঙ্গেরি যেতে কত টাকা লাগে | হাঙ্গেরি ওয়ার্ক পারমিট ভিসা ২০২৪”

  1. I want to work in restaurant, I want visa.. I will work honestly my phone 08801838412260
    I have experience light driving and building electrician work and any fruit farm worker Wearhouse picking and light duty cleaner

    Reply

Leave a Comment