ঢাকা টু খুলনা ট্রেনের সময়সূচী ও ভাড়া ২০২৩

ঢাকা টু খুলনা ট্রেনের সময়সূচী ও ভাড়ার তালিকা ২০২৩, বাংলাদেশের অন্যতম দূরত্বের ট্রেন লাইন হচ্ছে ঢাকা খুলনা ট্রেন লাইন। ঢাকা থেকে খুলনা চলাচলের সবচাইতে জনপ্রিয় মাধ্যম হচ্ছে ট্রেন কারণ বাংলাদেশের অন্যতম ব্যস্ত ট্রেন লাইন হচ্ছে ঢাকা খুলনা রেললাইন।

অনেকেই ঢাকা থেকে খুলনা যেতে চায় কিন্তু পর্যাপ্ত পরিমাণ ইনফরমেশন না থাকার কারণে সঠিক সময়ে ট্রেনের মাধ্যমে ঢাকা থেকে খুলনা যেতে পারে না। কারণ ট্রেনের নির্দিষ্ট টাইম টেবিলে চলে তাই অবশ্যই আপনাকে ঢাকা টু খুলনা ট্রেনের সময়সূচী ও ভাড়া জানতে হবে।

যদি আপনি ঢাকা থেকে খুলনা ট্রেনের সময়সূচী এবং ভাড়ার তালিকাটি অনুসন্ধান করে থাকেন। তাহলে আপনি সঠিক ওয়েবসাইটে এসেছেন কারণ আমার এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আপনাদের জানিয়ে দেবো ঢাকা টু খুলনা ট্রেনের সময়সূচী ও ভাড়া এবং দূরত্ব কত কিলোমিটার? তাই অবশ্যই আমার এই আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে পড়বেন।

ঢাকা টু খুলনা ট্রেনের সময়সূচী ও ভাড়া ২০২৩

আপনারা অনেকেই চাকরি বা পারিবারিক উদ্দেশ্যে ঢাকা থেকে খুলনা চলাচল করেন। ঢাকা থেকে খুলনা ট্রেনের মাধ্যমে চলাচল করতে হলে বঙ্গবন্ধু সেতু হয়ে অনেক পথ ঘুরে খুলনা যেতে হয় কিন্তু তারপরেও ট্রেন ভ্রমণ অনেক স্বাচ্ছন্দ তাই সবার পছন্দের শীর্ষে ঢাকা টু খুলনা ট্রেন ভ্রমণ। সকল সম্মানিত যাত্রীগণ ঢাকা টু খুলনা ট্রেন চলাচল করবেন তাদের অবশ্যই জানতে হবে ঢাকা টু খুলনা ট্রেনের সময়সূচী ও ভাড়া কত টাকা। আপনারা আমার এই আর্টিকেল থেকে খুব সহজেই ঢাকা টু খুলনা ট্রেনের সময়সূচী ও ভাড়া জেনে নিতে পারবেন।

ঢাকা থেকে খুলনা ট্রেনের সময়সূচী ও ভাড়া ২০২৩

বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার কমলাপুর রেলস্টেশন থেকে খুলনার উদ্দেশ্যে প্রতিদিন চলাচল করে দুটি আন্তঃনগর ট্রেন চলাচল করে। তাই কমলাপুর রেল স্টেশন থেকে হাজার হাজার মানুষ ঢাকা টু খুলনা রোডে চলাচল করে। মূলত এই যাত্রীগুলো ঢাকা কমলাপুর রেলস্টেশন থেকে যমুনা সেতুর উপর দিয়ে ঈশ্বর দিয়ে রেলস্টেশন হয়ে খুলনা গিয়ে পৌঁছায়। আপনি খুব সহজেই দুটি আন্তঃনগর ট্রেনের বিস্তারিত তথ্য জেনে নিতে পারেন।

সুন্দরবন এক্সপ্রেস(৭২৬)

সুন্দরবন এক্সপ্রেস ট্রেনটি সুন্দরবন এর নাম অনুসারে রাখা হয়েছে। সুন্দরবন এক্সপ্রেস ট্রেনটি ঢাকা থেকে খুলনা এবং খুলনা থেকে ঢাকা রুটে চলাচল করি একটি বিলাসবহুল আন্তঃনগর ট্রেন। যদি আপনি বাংলাদেশের প্রাকৃতিক দৃশ্য দেখতে চান তাহলে দিনের বেলায় অবশ্যই আপনি সুন্দরবন এক্সপ্রেস ট্রেনে ঢাকা থেকে খুলনা চলাচল করতে পারেন।

বাংলাদেশ সরকারের রেল মন্ত্রণালয় থেকে ২০০৩ সালে সুন্দরবন এক্সপ্রেস ট্রেনটি চালু করেছে। এর পরে নিয়মিত সপ্তাহে ছয় দিন ট্রেনটি ঢাকা টু খুলনা এবং খুলনা টু ঢাকা রুটে চলাচল করছে। সুন্দরবন এক্সপ্রেস ট্রেনটি কমলাপুর রেল স্টেশন থেকে সকাল ৮ঃ১৫ মিনিটে খুলনার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায় এবং বিকাল ৫ঃ৪০ মিনিটে গিয়ে খুলনার রেল স্টেশনে পৌঁছে। সুন্দরবন এক্সপ্রেস ট্রেন সাপ্তাহিক বন্ধ হচ্ছে বুধবার।

ঢাকা টু খুলনা রুটে চলাচলকৃত সুন্দরবন এক্সপ্রেস ট্রেনটির মধ্যবর্তী স্টেশনের স্টপেজ তালিকা।

স্টেশনআগমনছেড়ে যায়
ঢাকা০৮:১৫ am
বিমান বন্দর০৮:৪২ am০৮:৪৭ am
জয়দেবপুর0৯:১২ am০৯:১৭ am
মির্জাপুর0৯:৫৭ am১০ঃ০৪ am
টাঙ্গাইল১০:২৮ am১০:৩০ am
বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব১০:৪৫ am১০:৫৫ am
এসএইচ এম মনসুর আলী১১:২১ am১১:২৪ am
জামতাইল১১:৩২ am১১:৩৪ am
উল্লাপাড়া১১:৪৬ am১১:৪৯ am
বোরাল ব্রিজ১২:০৮ pm১২:১১ pm
চাটমোহর১২:২৪ pm১২:২৭ pm
ঈশ্বরদী০১:০০ pm০১:২০ pm
ভেড়ামারা০১:৪০ pm০১:৪৩ pm
মিরপুর০১:৫৪ pm০১:৫৮  pm
পোড়াদহ০২:০৫ pm০২:০৮ pm
আলমডাঙ্গা০২:২৪ pm০২:২৭ pm
চুয়াডাঙ্গা০২:৪১ pm০২:৪৫ pm
দর্শনা০৩:১৫ pm০৩:১৮ pm
কোটচাঁদপুর০৩:৪২ pm০৩:৪৪ pm
মোবারকগঞ্জ০৩:৫৬ pm০৩:৫৬ pm
যশোর০৪:২১ pm০৪:২৪ pm
নোয়াপাড়া০৪:৫২ pm০৪:৫৬ pm
দৌলতপুর০৫:১৯ pm০৫:২১ pm
খুলনা০৫:৪০ pm

চিত্রা এক্সপ্রেস(৭৬৪)

সুন্দরবনের চিত্রা হরিণ বসবাস করে তাই বাংলাদেশ রেল মন্ত্রণালয় থেকে ট্রেনটির নাম চিত্রা এক্সপ্রেস রাখা হয়েছে। বাংলাদেশের অন্যতম বিলাসবহুল আন্তঃনগর ট্রেন হচ্ছে চিত্রা এক্সপ্রেস ট্রেনটিতে মোট ১২ টি বগি দিয়ে ৮৮১ টি আসন আছে। চিত্রা এক্সপ্রেস ট্রেনটিতে এসি কেবিন এবং এসি চেয়ার সুবিধাসহ সকল সুবিধা রয়েছে।

চিত্রা এক্সপ্রেস ট্রেনটি ঢাকা কমলাপুর রেলস্টেশন থেকে সন্ধ্যা ৭ টায় খুলনা রেলস্টেশনের উদ্দেশ্যে রওনা দেয় এবং রাত ০৩ঃ২০ মিনিটে খুলনা গিয়ে পৌঁছে। চিত্রা এক্সপ্রেস ট্রেন টি সাপ্তাহিক বন্ধ হচ্ছে সোমবার। চিত্রা এক্সপ্রেস ট্রেন রাতের বেলা চলাচল করে বিদায় এই ট্রেনটিতে এসি কেবিনে রাতে শুয়ে যেতে পারবেন।

ঢাকা টু খুলনা রুটে চলাচলকৃত চিত্রা এক্সপ্রেস ট্রেনটির মধ্যবর্তী স্টেশনের স্টপেজ তালিকা। 

স্টেশনআগমনছেড়ে যায়
ঢাকা০৭:০০ pm
বিমান বন্দর০৭:২৭ pm০৭:৩২ pm
জয়দেবপুর০৭:৫৫ pm০৮:৫৮ pm
টাঙ্গাইল০৪:৫৮ pm০৯:০০ pm
বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব০৯:২০ pm০৯:৩০ pm
এসএইচ এম মনসুর আলী০৯:৫৬ pm০৯:৫৮ pm
উল্লাপাড়া১০:১৪ pm১০:১৭ pm
বোরাল ব্রিজ১০ঃ৩৪ pm১০ঃ৩৬ pm
চাটমোহর১০:৪৯ pm১০:৫২ pm
ঈশ্বরদী১১:১৫ pm১১:৩৫ pm
ভেড়ামারা১১:৫৫ pm১১:৫৮ pm
পোড়াদহ১২:১৬ am১২:১৯ am
আলমডাঙ্গা১২:৩৫ am১২:৩৮ am
চুয়াডাঙ্গা১২:৫৫ am১২:৫৮ am
কোটচাঁদপুর০১:৪১ am০১:৪৩ am
মোবারকগঞ্জ০১:৫২ am০১:৫৪ am
যশোর০২:২০ am০২:২৪ am
নোয়াপাড়া০২:৫২ am০২:৫৫ am
খুলনা০৩:৪০ am

ঢাকা থেকে খুলনা ট্রেনের ভাড়ার তালিকা ২০২৩

আপনি যদি ঢাকা থেকে খুলনা ট্রেনে চলাচল করেন তাহলে অবশ্যই আপনার ঢাকা থেকে খুলনা ট্রেনের ভাড়ার তালিকা প্রয়োজন হবে। তাই আপনার প্রয়োজনের কথা মাথায় রেখে বাংলাদেশের মন্ত্রণালয় থেকে ভাড়ার তালিকা একটি সংগ্রহ করে আপনাদের মাঝে উপস্থাপন করলাম। আপনারা খুব সহজেই এই তালিকা থেকে ঢাকা টু খুলনা ট্রেনের ভাড়া দেখে নিতে পারবেন।

আসন বিভাগটিকিটের মূল্য
শোভন৩৯০ টাকা
শোভন চেয়ার৪৬৫ টাকা
প্রথম আসন৬২০ টাকা
প্রথম বার্থ৯৩০ টাকা
স্নিগ্ধা৮৯১ টাকা
এসি১০৭০ টাকা
এসি বার্থ১৫৯৯ টাকা

রেলপথে ঢাকা থেকে খুলনার দূরত্ব কত

ঢাকা থেকে রেল পথে খুলনার দূরত্ব হচ্ছে ৪০৪ কিলোমিটার কারণ ঢাকা থেকে বঙ্গবন্ধু সেতু হয়ে ট্রেন চলাচল করে বিদায় এই দূরত্ব। অর্থাৎ ঢাকা কমলাপুর রেলস্টেশন থেকে টাঙ্গাইল বঙ্গবন্ধু যমুনা সেতু হয়ে ঈশ্বরদী রেল জংশন দিয়ে খুলনা পৌঁছায় তাই এই রেলপথের দূরত্ব ৪০৪ কিলোমিটার।

আরও পড়ুনঃ ঢাকা টু কক্সবাজার ট্রেনের সময়সূচী এবং ভাড়া

ঢাকা থেকে খুলনার দূরত্ব কত কিলোমিটার

ঢাকা থেকে পদ্মা সেতু হয়ে খুলনার দূরত্ব হচ্ছে ২৭২ কিলোমিটার। আপনি যদি ঢাকা থেকে পদ্মা সেতু হয়ে খুলনা চলাচল করেন তাহলে এই পথের মোট দূরত্ব দ্বারা ২৭২ কিলোমিটার। বর্তমানে পদ্মা সেতু চালু হওয়ার কারণে ঢাকা টু খুলনা রেলপথের দূরত্ব কমে এসেছে এবং সময়ও বেঁচে যাচ্ছে যাত্রীদের।

সর্বশেষ কথাঃ

যে সকল সম্মানিত যাত্রী ঢাকা টু খুলনা ট্রেন রোডে চলাচল করেন তারা খুব সহজেই অনলাইন থেকে ট্রেনের টিকিট কেটে যাত্রা করতে পারবেন। আশা করি আমার এই আর্টিকেল এর মাধ্যমে আপনারা ঢাকা থেকে খুলনা ট্রেনের সময়সূচী এবং ভাড়ার তালিকা জানতে পেরেছেন। এর ফলে আপনারা খুব সহজেই ঢাকা টু খুলনা ট্রেন চলাচল করতে পারবেন।

Leave a Comment