গরম আর কতদিন থাকবে জানালো আবহাওয়া অফিস ২০২৪

গরম আর কতদিন থাকবে জানালো আবহাওয়া অফিস? সেই সংবাদ জানালো বাংলাদেশ আবহাওয়া অফিস জুন মাসে প্রচন্ড গরম পড়েছে এবং এই গরম আর কতদিন থাকবে সেই বিষয় নিয়ে আজকে আমার এই পোস্টে আলোচনা হবে।

তাই গরম আর কতদিন থাকবে সেই বিষয়ে আবহাওয়া অফিসের খবরটি দেখে নিন ২০২৪ সালে বৈশাখ মাস আসার পরে থেকেই বাংলাদেশের উপর দিয়ে ভয়ংকর তাপ প্রবাহ অগ্নি-১ চলিতেছে দেশের বিভিন্ন স্থানে বয়ে যাচ্ছে তীব্র তাপ-প্রবাহ।

দেশের অধিকাংশ অঞ্চলে বর্তমানে মাঝারি থেকে তীব্র তাপপ্রবাহ চলমান রয়েছে এবং রাজশাহী অঞ্চলে তীব্র থেকে তীব্র তাপ প্রবাহ চলমান আছে সামনে ৩ দিন আরও এই তাপ প্রবাহ তীব্র থেকে তীব্র হবে।

আজ ১ ই জুলাই থেকে আগামী ৭ ই জুলাই পর্যন্ত দেশের পশ্চিমাঞ্চলে কোথাও কোথাও তাপমাত্রা আরও বৃদ্ধি পেয়ে ৪২ থেকে ৪৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত উঠতে পারে সেই বিষয়ে বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর একটি বিজ্ঞাপন জারি করেছে।

গরম আর কতদিন থাকবে জানালো আবহাওয়া অফিস

২০২৪ সালে গরম আর কতদিন থাকবে সেই বিষয়ে আবহাওয়া অফিস একটি সংবাদ প্রচার করেছে। আবহাওয়া অফিসের খবর অনুযায়ী প্রচন্ড গরম এই বছর আর কতদিন থাকবে সেই বিষয় নিয়ে আলোচনা করবো বাংলাদেশ ছয় ঋতুর দেশ বর্তমানে গ্রীষ্ম ঋতু চালু আছে।

তাই বাংলাদেশের উপর দিয়ে তীব্র তাপ প্রবাহ বয়ে চলছে এই তাপ প্রবাহ আর কতদিন চলবে সেই বিষয়ে আবহাওয়া অফিস সংবাদ মাধ্যমে প্রচার করেছে যে ১ই জুলাই থেকে আগামী ৭ই জুলাই পর্যন্ত প্রচন্ড তাপ প্রবাহ চলতে পারে।

আগামী ০৭ দিনের আবহাওয়ার খবর

আবহাওয়া পর্যবেক্ষণকারী একটি সংস্থা থেকে বলা হয়েছে বঙ্গোপসাগর থেকে বাতাস বাংলাদেশের দিকে প্রবেশ করতে না পারার কারণে বাংলাদেশে প্রচন্ড পরিমাণ গরম উপলব্ধি করা যাচ্ছে  এই কারণে আগামী ০৭ দিন বাংলাদেশ ও পশ্চিমবঙ্গের আবহাওয়া অনেক গরম থাকবে।

সিলেট বিভাগ এবং চট্টগ্রাম বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা আছে সেই কারণে সিলেট বিভাগ এবং চট্টগ্রাম বিভাগে কিছুটা গরম কম থাকবে। বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর থেকে প্রকাশিত আগামী ০৭ দিনের আবহাওয়ার খবর অনুযায়ী এই আর্টিকেলটি লেখা হলো।

তীব্র তাপ প্রবাহ

আগামী ৭ দিন সম্পূর্ণ রাজশাহী বিভাগ, খুলনা বিভাগ, পাবনা জেলা, নাটোর জেলা, ঈশ্বরদী, বগুড়া জেলা, চাপাইনবাবগঞ্জ জেলা, ফরিদপুর জেলা, টাঙ্গাইল জেলা, ঢাকা জেলা, বরিশাল বিভাগ, গোপালগঞ্জ জেলা, পটুয়াখালী জেলা, পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চল সমূহ ও এর পার্শ্ববর্তী এলাকায় তীব্র থেকে তীব্র তাপ প্রবাহ বয়ে যেতে পারে। আমরা সাধারণত তীব্র তাপ প্রবাহ বলতে বুঝি ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের উপরে যে তাপমাত্রা তাকে আমরা তীব্র তাপ প্রবাহ বুঝি। আগামী ০৭ দিন এইসব অঞ্চল দিয়ে তীব্র তাপ প্রবাহ চলমান থাকবে।

আরও পড়ুনঃ  নতুন ভোটার হতে কি কি লাগে এবং কিভাবে হবো

মাঝারি তাপ প্রবাহ

আগামী ০৭ দিন রাজশাহী বিভাগ, ঢাকা বিভাগ, চট্টগ্রাম বিভাগ ও বরিশাল বিভাগ এবং রংপুর ও ময়মনসিংহ বিভাগের বাকি অঞ্চল দিয়ে মাঝারি তাপ প্রবাহ বয়ে যাবে। এইসব বিভাগের বাকি অঞ্চলগুলোতে মাঝারি তাপ প্রবাহ বয়ে যাবে এবং এই মাঝারি তাপ প্রবাহ বলতে আমরা বুঝি ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা থেকে ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা পর্যন্ত। তাই আপনারা সব সময় চেষ্টা করবেন তীব্র রোদ এর আলো এড়িয়ে চলতে।

মৃদু তাপ প্রবাহ

এই বছরের আগামী ০৭ দিন সিলেট বিভাগের অধিকাংশ এলাকা দিয়ে মৃদু তাপ প্রবাহ চলমান থাকবে। সিলেট বিভাগের হবিগঞ্জ জেলা সিলেট জেলা মৌলভীবাজার জেলা সুনামগঞ্জ জেলা এই সকল জেলার উপর দিয়ে আগামী তিন দিন মৃদু তাপ প্রবাহ চলমান থাকবে। তাই এই সকল জেলাবাসীর উদ্দেশ্যে বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর সংবাদ প্রকাশ করেছে। যে সংবাদ এর মাধ্যমে জরুরি প্রয়োজন ছাড়া সকাল ১০ টায় থেকে বিকাল ০৩ টা পর্যন্ত রুম থেকে না বাহির হওয়াটাই ভালো।

আবহাওয়া পূর্বাভাস

জলবায়ু পরিবর্তনের জন্য বাংলাদেশের উপর দিয়া বর্তমান একটি শক্তিশালী তীব্র ও মাঝারি মানের একটি তাপ প্রবাহ চলমান আছে। চলমান তাপ প্রবাহ আরো কয়েকদিন থাকবে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর। তাপ প্রবাহ অগ্নি-১ চলাকালীন সময়ে দেশের কিছু কিছু অঞ্চলে আশঙ্কিকভাবে বজ্র বৃষ্টিপাত হতে পারে।

তাই আপনারা বৃষ্টি নামার সাথে সাথে নিরাপত্তি স্থানে চলে যাবেন কারণ বর্তমানে বৃষ্টির সাথে প্রচুর পরিমাণ বজ্রপাত হয় তাই বৃষ্টি নেওয়ার সাথে সাথে নিরাপদ স্থানে চলে যাবেন। সিলেট বিভাগ এবং চট্টগ্রাম বিভাগের কিছু এলাকায় হালকা বৃষ্টির সম্ভাবনা আছে এবং দেশের দক্ষিণ অঞ্চলে দুই এক জায়গায় হঠাৎ করে বৃষ্টি নামার সম্ভাবনা আছে।

তাপ প্রবাহ নিয়ে কিছু কথাঃ

বর্তমানে তীব্র তাপ প্রবাহ অগ্নি-১ চলিতেছে তাই বাতাসে আদ্রতা এবং জলীয় বাষ্প কম থাকিবে তার কারণে প্রচন্ড গরম লাগবে আমাদের তাই  প্রয়োজন ছাড়া কেউ ঘরের বাইরে যাবেন না এবং রোদ এড়িয়ে চলাফেরা করবেন।

প্রয়োজনের তুলনায় বেশি বেশি পানি পান করবেন কারণ এই গরমের কারণে আমাদের শরীর থেকে প্রচুর ঘাম ঝরে পানি শূন্যতা সৃষ্টি করবে তাই আমরা বেশি বেশি পানি পান করবো এবং রোদের স্থান এড়িয়ে চলব।

Leave a Comment