ইতালি ভিসা আবেদন লিংক | ভিসা আবেদন করার নিয়ম ২০২৪

ইতালি ভিসা আবেদন লিংক | ভিসা আবেদন করার নিয়ম, ইতালি বিশ্বের অন্যতম উন্নত দেশ তাই ইতালির অর্থনৈতিক ও জীবন মান পরিস্থিতি খুবই উন্নত।  তাই বাংলাদেশ থেকে অনেকেই কাজের উদ্দেশ্যে বর্তমানে ইতালি যেতে চায়।

বর্তমানে ইতালি সরকার শ্রমিক সংকট কাটাতে ইউরোপের দেশ বাদে ৩৬ টি দেশ থেকে আগামী ৩ বছরে ৪ লক্ষ থেকে ৫ লক্ষ শ্রমিক নিয়োগ দিবে। সরকারি গেজেট অনুযায়ী বাংলাদেশের নাগরিকরাও ইতালির ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবে।

আজকের এই পোষ্টের মাধ্যমে আপনাদের জানিয়ে দেবো ইতালি ভিসা আবেদন লিংক এর ঠিকানা। এবং কিভাবে ইতালিতে ভিসার আবেদন করতে হয় কি কি কাগজপত্র লাগে ও সঠিক নিয়মে ভিসার আবেদন করার সমস্ত তথ্য।

ইতালি ভিসা আবেদন লিংক

ইতালি সরকার শ্রমিক সংকট কাটাতে আগামী বছরে কৃষি এবং অস্থায়ী ক্যাটাগরিতে ৪০ হাজার এবং স্থায়ী স্পন্সর ভিসার ক্যাটারক্রটিতে ৩৮ হাজার শ্রমিক নিবে।ইতালিতে গ্রীষ্ম মৌসুমে প্রচুর পরিমাণ কৃষি কাজের জন্য শ্রমিক দরকার পড়ে তাই ইতালি সরকার সিজনাল ভিসায় শ্রমিক নিয়োগ দিয়ে থাকে।

আপনারা যারা ইতালিতে কাজের ভিসার জন্য সরাসরি আবেদন করতে চাচ্ছেন তাদের একটি কথা বলতে চাই ইতালিতে সরাসরি কাজের ভিসার জন্য আবেদন করা যায় না। অবশ্যই আপনাকে নিয়োগ কর্তার মাধ্যমে ওয়ার্ক ভিসা পেতে হবে। তাই এই পোষ্টের মাধ্যমে আপনাদের জানিয়ে দেবো ইতালি ভিসা আবেদন লিংক কিভাবে ভিসার আবেদন করতে হয় এবং ভিসার খরচ কত?

ইতালি ভিসা আবেদন করার নিয়ম

বাংলাদেশের অনেকেই জানেনা কিভাবে ইতালিতে ভিসার আবেদন করতে হয়। অনেকেই ইন্টারনেটে এই তথ্য জানার জন্য অনুসন্ধান করে থাকে তাই আপনাদের জন্য আমার এই আর্টিকেলের মাধ্যমে জানিয়ে দিব কিভাবে ইতালিতে ভিসার আবেদন করতে হয় এবং ফরম পূরণ করতে কি কি লাগে।

ইতালিতে ভিসার জন্য আবেদন করতে হলে অবশ্যই আপনাকে  (VFS Global) এর অফিশিয়াল ওয়েবসাইট প্রবেশ করতে হবে। এরপর আপনাকে নিচের এই পদক্ষেপগুলো গ্রহণ করতে হবে।

  • সর্বপ্রথম ইতালি ভিসা আবেদন সেন্টার (VFS Global) অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে।
  • অফিশিয়াল ওয়েবসাইটঃ https://www.vfsglobal.com/italy/bangladesh/index.html
  • অফিসিয়াল ওয়েবসাইট প্রবেশের পর “Visa Types” এর অপশনে গিয়ে আপনার ভিসার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন এবং “How to Apply” অপশনে গিয়ে আবেদনের প্রক্রিয়ার জন্য প্রয়োজনে সমস্ত তথ্য সংগ্রহ করুন।
  • প্রয়োজনীয় সকল ডকুমেন্টস দিয়ে আপনার আবেদন ফরম পূরণ করুন এবং সম্পূর্ণ ভিসা আবেদন সম্পন্ন করুন।
  • নির্ধারিত ভিসা আবেদনের ফ্রি প্রদান করতে হবে, যা আপনি অফিসিয়াল ওয়েবসাইট এর মাধ্যমে অনলাইনে প্রদান করতে পারবেন।
  • অনলাইনে আবেদন সম্পন্ন হয়ে গেলে আপনাকে ইতালির ভিসা আবেদন সেন্টারে গিয়ে অনলাইনে আবেদন পত্রের কপি এবং সাথে সকল প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস জমা দিতে হবে।
  • অফিসিয়াল ইতালি ভিসা আবেদন কেন্দ্র ঢাকা অফিসঃ Delta Life Tower (4th Floor), Plot 37, Road 90, North Avenue, Gulshan North, Dhaka 1212, Bangladesh,
  • মোবাইল নাম্বার = +88 09 61 28 93 838

ইতালি ভিসা আবেদন লিংক এর প্রয়োজনীয় কাগজপত্র

জীবন যাত্রার মান উন্নয়নের জন্য বাংলাদেশ থেকে প্রচুর পরিমাণ যুবক ইতালিতে যেতে চায়। কারণ বিশ্বের অন্যতম উন্নত দেশ হচ্ছে ইতালি তাই যে সকল বাংলাদেশী ইতালের উদ্দেশ্যে পাড়ি জমাতে চান তারা অবশ্যই ইতালির ভিসা আবেদন লিংক এর মাধ্যমে আবেদন করে ইতালিতে যাবেন।

ইতালিতে ভিসার জন্য আবেদন করতে হলে অবশ্যই আপনাকে কিছু কাগজপত্র ইতালির অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে জমা দিতে হবে। কিন্তু অনেক বাংলাদেশী জানে না ভিসা আবেদনের জন্য কি কি কাগজপত্র প্রয়োজন হয়।

তাই আপনাদের জানার সুবিধার্থে ভিসা আবেদনের সময় কোন কোন কাগজপত্র প্রয়োজন হয় সেই লিস্ট আমার ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হলো। নিম্নলিখিত এই সকল কাগজপত্র আপনার ইতালি ভিসা আবেদন এর সময় প্রয়োজন হয়।

  • অনলাইনে ভিসা আবেদনপত্র কপি।
  • বাংলাদেশী বৈধ পাসপোর্ট।
  • পাসপোর্ট সাইজের ছবি।
  • বৈধ ভোটার আইডি কার্ডের ফটোকপি।
  • সকল শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদপত্র।
  • যদি কাজের অভিজ্ঞতা থাকে তাহলে অভিজ্ঞতা সনদপত্র।
  • অবশ্যই আপনাকে ১৮ বছরের বেশি হতে হবে।
  • করোনা টিকার সার্টিফিকেট।
  • বৈধ পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট।
  • নির্ধারিত আবেদনপত্র ফি এর রশিদ।

ইতালিতে অনলাইনে আবেদনের ফ্রি

অফিশিয়াল ওয়েবসাইটঃhttps://www.vfsglobal.com/italy/bangladesh/index.html  এই লিংকের মাধ্যমে আপনি যদি ইতালিতে ভিসার জন্য অনলাইনে আবেদন করেন তাহলে আপনার সর্বমোট খরচ হবে ১৬ ইউরো। ইতালি সরকার ভিসার আবেদনের জন্য ১৬ ইউরো নির্ধারণ করে দিয়েছে।

আরও পড়ুনঃ

বাংলাদেশ থেকে ইতালি যাওয়ার জন্য কোটার সংখ্যা

বিগত কয়েক বছর ধরে ইতালি সরকার বাংলাদেশের জন্য নির্দিষ্ট কোটা বেঁধে দিয়েছিল কিন্তু বর্তমানে বাংলাদেশের জন্য নির্ধারিত কোন কোটা সিস্টেম নেই। তাই কত সংখ্যক কর্মী বাংলাদেশ থেকে ইতালি সরকার নিবে তার কোন নির্দিষ্ট সংখ্যা নেই।

তবে ইতালি সরকার এই বছর আবেদন জমা দেওয়ার ক্ষেত্রে একটি নতুন শর্ত জুড়ে দিয়েছে সেই শর্তটি হল ইতালিতে নিয়োগদাতা তাদের কতগুলো শ্রমিক বাংলাদেশ থেকে প্রয়োজন সেই সংখ্যা ইতালি কর্তৃপক্ষকে জানাতে হবে। নিয়োগ দাতার আবেদন পত্র যদি সঠিক হয় তাহলে ইতালি সরকার ভিসার অনুমোদন পত্র বাংলাদেশ দূতাবাসে পাঠিয়ে দিবে।

ইতালি ভিসা খরচ

বাংলাদেশ থেকে ইতালিতে দুটি ক্যাটাগরিতে ভিসার জন্য আবেদন করা যায়। একটি ক্যাটাগরি হচ্ছে ফ্যামিলি ভিসার আবেদন এবং আরেকটি ক্যাটাগরি হচ্ছে ওয়ার্ক ভিসার আবেদন।

বর্তমানে ইতালিতে ফ্যামিলি ভিসার জন্য আবেদন করতে হলে ৫০ ইউরো ফি বা বাংলাদেশী টাকায় বর্তমানে ৫০০০ হাজার টাকা ইতালি সরকারকে প্রদান করতে হবে।

আপনি যদি ওয়ার্ক পারমিটের জন্য ভিসার আবেদন করেন তাহলে আপনাকে ৩৮ ইউরো বা বাংলাদেশি টাকায় ৩৮০০ টাকা ইতালি সরকারকে ফি প্রদান করতে হবে।

এই ফ্রি প্রদান করতে হলে অবশ্যই আপনাকে ব্যাংক ড্রাফ করতে হবে এবং ব্যাংক ড্রাফ এর চার্জ হচ্ছে ২৭০ টাকা।

ইতালির মুদ্রার নাম কি

বর্তমানে বাংলাদেশ থেকে অনেক যুবক ইতালির উদ্দেশ্যে পাড়ি জমাচ্ছে তাই ইন্টারনেটে অনেকে জানতে চাই ইতালির মুদ্রার নাম কি? ইতালি ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত দেশ তাই সে দেশের মুদ্রার নাম হচ্ছে ইউরো। তাই আপনারা যারা ইন্টারনেটে ইতালির মুদ্রার নাম জানতে চান তারা জেনে রাখুন ইতালির বর্তমান মুদ্রার নাম হচ্ছে ইউরো।

Leave a Comment